Friday , April 23 2021
Home / জয়পুরহাট সদর / জয়পুরহাটে ডায়রিয়ার প্রকোপ

জয়পুরহাটে ডায়রিয়ার প্রকোপ

আবদুল আলীম মণ্ডল

জয়পুরহাটে হঠাৎ করে রোটা ভাইরাস বা ই-কলাইজনিত ডায়রিয়া রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। যার প্রাদুর্ভাব সবচেয়ে বেশি ছড়াচ্ছে শিশু ও বয়স্কদের মধ্যে। গত এক মাসে জেলা সদরের আধুনিক হাসপাতালেই বিভিন্ন বয়সী প্রায় দুই হাজারের অধিক নারী-পুরুষ চিকিৎসা নিয়েছেন। এ ছাড়াও বিভিন্ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছেন আরো প্রায় পাঁচ শতাধিক।

জয়পুরহাট পৌর এলাকার বুলুপাড়া গ্রামের ৬ মাসের শিশুপুত্র আবদুল্লাহর পিতা জাহিদুল ইসলাম বলেন, আমার ছেলে যা খাচ্ছে তাই বের হয়ে যাচ্ছে। জয়পুরহাট সদর উপজেলার তুলাট গ্রামের ১০ মাসের শিশুপুত্র রমজানের পিতা জাহেদুল আলম ও একই উপজেলার কয়তাহার গ্রামের ১৫ মাসের শিশুপুত্র জাকারিয়ার পিতা রুবেল হোসেন জানান, তার ছেলে পাতলা পায়খানা ও বমি শুরুর পর স্যালাইন খাওয়ানো হয়। কিন্তু সুস্থ না হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করাতে হয়। হাসপাতালের ডায়রিয়া ওয়ার্ডের কর্তব্যরত সিনিয়র স্টাফ নার্স (সেবিকা) নাসিমা সুলতানা জানান, প্রতিদিন একদিকে সুস্থ হয়ে একদল বাড়ি যাচ্ছে।

অন্যদিকে চিকিৎসা নিতে নতুন করে এসে ভর্তি হচ্ছে। হাসপাতালে পর্যাপ্ত বেডের ব্যবস্থা না থাকায় করিডোর ও বারান্দার মেঝেতে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়ে গেছে। মূলত রোটা ভাইরাস বা ই-কলাই জীবাণু থেকে ডায়রিয়া হচ্ছে। খাদ্যাভাস পরিবর্তন ও পানি কম খাওয়ার কারণেও ডায়রিয়া হতে পারে। খাবার আগে হাত সাবান দিয়ে ধৌত করতে হবে। শৌচকাজ সারার পর ছোট থেকে বড় সবারই ভালোভাবে জীবাণুমুক্তকরণ সাবান দিয়ে হাত ধোয়া অত্যন্ত জরুরি। এ ছাড়াও ডায়রিয়া হয়ে গেলে হাসপাতালে নিয়ে আসতে হবে। জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল চিকিৎসক (আরএমও) ডা. মিজানুর রহমান মিজান জানান, ‘সবাই যদি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকে এবং প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে তাহলে আমরা খুব তাড়াতাড়ি এ থেকে মুক্তি পেতে পারি।’

-মানবজমিন

About Joypur Hat

Check Also

জয়পুরহাটে হুইপ স্বপনের সমন্বয় সভা

জয়পুরহাট থেকে মো. আতাউর রহমান : করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় এবং এর প্রাদুর্ভাব রোধে …