Thursday , October 22 2020
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
Home / মতামত / নওগাঁ-জয়পুরহাট মহাসড়কের বেহাল দশা

নওগাঁ-জয়পুরহাট মহাসড়কের বেহাল দশা

নওগাঁ টু জয়পুরহাট আন্তঃজেলা মহাসড়কের মহাদেবপুর উপজেলার মোল্লাকুড়ি মোড় থেকে মহাদেবপুর হয়ে নজিপুর পর্যন্ত মহাসড়কটি সংস্কারের অভাবে বেহাল দশার সৃষ্টি হয়েছে। মাঝে মধ্যে ছোটখাটো সংস্কার করলেও মহাসড়কটির যত্রতত্র খানা-খন্দকের সৃষ্টি এবং অনেক জায়গাই ফেটে যাওয়ার কারণে বাস, ট্রাক, মাইক্রো, প্রাইভেট কার, রিকশা, ভ্যান, চার্জারসহ নানা প্রকার যানবাহন চলাচলে চরম জনদুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। নওগাঁ জেলা সদর থেকে মহাদেবপুর উপজেলার উপর দিয়ে পোরশা, সাপাহার, পত্নীতলা, ধামইরহাট উপজেলায় যোগাযোগের একমাত্র ব্যস্ততম জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটির যত্রতত্র খানা-খন্দকের কারণে মাঝে মধ্যেই ছোট-বড় বিভিন্ন ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে। এ ছাড়াও নওগাঁ টু জয়পুরহাট আন্তঃজেলা মহাসড়কের মহাদেবপুর উপজেলা সদরের বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ডবলওয়ে রাস্তার আইল্যান্ডের পূর্বপাশের রাস্তাটি সংস্কারের অভাবে যান চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন স্থানে রাস্তার মাঝে খানাখন্দক সৃষ্টি হওয়ার কারণে এক পশলা বৃষ্টি হলেই রাস্তার উপর জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। রাস্তাটিতে খানাখন্দকের কারণে যানবাহনের চালকরা পূর্ব পাশের রাস্তাটি ব্যবহার না করে পশ্চিম পাশের রাস্তাটি ব্যবহার করেন। ফলে পশ্চিম পাশের রাস্তাটির উপর চাপ পড়ায় উপজেলা সদরের বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মাঝে মধ্যেই যানজটের সৃষ্টি হয়। নওগাঁ জেলার ব্যস্ততম জনগুরুত্বপূর্ণ আন্তঃজেলা মহাসড়কটি জরুরিভিত্তিতে সংস্কারের দাবিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এলাকাবাসী। এ বিষয়ে সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী হামিদুল হক জানান, বর্তমানে বিভাগীয় মেরামতের মাধ্যমে যান চলাচল সচল রাখা হয়েছে।তবে নওগাঁ টু জয়পুরহাট আন্তঃজেলা মহাসড়কটির মহাদেবপুর উপজেলার নওহাটা (চৌমাসিয়া) মোড় থেকে মহাদেবপুর হয়ে মঙ্গলবাড়ী পর্যন্ত ৩৪ ফিট প্রশস্তকরণের জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। প্রকল্পটি আগামী মাসে অনুমোদন হলেই জনদুর্ভোগ লাঘবে কাজ শুরু হবে বলে তিনি জানান।

About Joypur Hat

Check Also

uttarancholnews24

রাত জেগে সেলফোন ব্যবহারে ক্ষতি ও করণীয়

ডেস্ক নিউজ : অনেকে দিনের বেলায়ই মাত্রাতিরিক্ত সেলফোন ও ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকেন। অনেকে আবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *